সোমবার, ২৬ অক্টোবর ২০২০, ০১:১৬ পূর্বাহ্ন

ঘুমাতে যাওয়ার আগে পানি পান করলে কী হয়?

এখনই ডট কম ডেস্ক:
  • প্রকাশের সময়: বুধবার, ১০ জুন, ২০২০
  • ৪০ বার দেখা হয়েছে

যদিও বিশেষজ্ঞরা পরামর্শ দিয়ে থাকেন সঠিক সময়ে খাবার খাওয়ার, কিন্তু যখন পানি পানের প্রসঙ্গ আসে তখন তেমন কোনো পরিষ্কার নির্দেশনা পাওয়া যায় না। আমরা যখন আমরা তৃষ্ণার্ত বোধ করি, তখন অজান্তেই পানির গ্লাসের দিকে হাত চলে যায়। তৃষ্ণা পেলে পানি পান করা যদিও স্বাভাবিক তবে কখনো কখনো তা এড়িয়েও চলা উচিত।

হ্যাঁ, দিনের সত্যিই একটি নির্দিষ্ট সময় আছে যখন আপনার পানি পান এড়ানো উচিত এবং সেটি ঠিক রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে। এটি দিনের একমাত্র সময় যখন আপনি পানি পান থেকে বিরত থাকার কাজটি করতে পারেন। এবং এই পানি পান না করার বিষয়টিও যথেষ্ট গুরুত্বপূর্ণ।

পৃথিবীর প্রতিটি জীবের বেঁচে থাকার জন্য পানির প্রয়োজন। পানি ছাড়া কোনো জীবনের সন্ধান মিলবে না। মানবদেহের প্রায় ৬০ শতাংশ পানি থেকে তৈরি। এটি প্রতিটি কোষ, টিস্যু এবং অঙ্গে উপস্থিত থাকে। পানি আমাদের শরীরের তাপমাত্রা বজায় রাখতে সহায়তা করে, আমাদের জয়েন্টগুলিকে তৈলাক্ত করে, শরীরের কোষগুলোকে বাড়তে সহায়তা করে এবং টক্সিন বের করে দেয়।

jagonews24

আপনি যদি সারাদিন পর্যাপ্ত পানি পান না করেন, তবে দুর্বল বোধ করতে পারেন, মাথাব্যথা এবং অন্যান্য স্বাস্থ্যগত সমস্যা অনুভব করতে পারেন।

ঘুমাতে যাওয়ার আগে পানি পান করা কেন ভালো নয়:
ঘুমোতে যাওয়ার ঠিক আগে পানি পান করা আপনার ঘুমচক্রে ব্যাঘাত ঘটাতে পারে। এটি রাতে প্রস্রাবের জন্য আপনার বাথরুমের তাড়া বাড়িয়ে দিতে পারে।

ঘুম ব্যহত হলে পরের দিন মুড সুইং, শরীর জ্বালা, উচ্চ রক্তচাপ, খিটখিটে মেজাজের কারণ হতে পারে। একটি সমীক্ষা অনুসারে, ৪৫ বছরের বেশি বয়স্ক প্রাপ্ত বয়স্করা যারা রাতে ছয় ঘণ্টারও কম ঘুমাতেন তাদের স্ট্রোকের ক্ষেত্রে স্ট্রোকের ঘটনা বেশি।

jagonews24

রাতে পানি পানের উপকারিতা
রাতের খাবার খাওয়ার পরে এক বা দুই গ্লাস পানি পান করলে তা নানাভাবে স্বাস্থ্যের উপকার করে। ভারি খাবার বা অধিক মশলাযুক্ত খাবার খাওয়ার পরে হালকা গরম পানির চেয়ে ভালো আর কিছু নেই। পানি প্রাকৃতিক ক্লিনার হিসাবে কাজ করে এবং শরীর থেকে বিষাক্ত পদার্থ দূর করতে সহায়তা করে। এটি হজম প্রক্রিয়া ত্বরান্বিত করে এবং কোষ্ঠকাঠিন্য দূরে রাখে।

পানি পানের সঠিক সময়:
পর্যাপ্ত পানি পান করা স্বাস্থ্যের পক্ষে সর্বদা ভালো, তবে এটির পাশাপাশি ঝুঁকি রয়েছে বলে এটি অতিরিক্ত পানি পান করা থেকে বিরত থাকুন। প্রতিদিন কমপক্ষে ২ লিটার পানি পানের চেষ্টা করুন। তবে যতটা সম্ভব ঘুমাতে যাওয়ার ঠিক আগে পানি পান এড়িয়ে চলুন। একটি ভালো মানের ঘুমের জন্য ঘুমাতে যাওয়ার ঠিক আগে নয়, অন্তত ত্রিশ মিনিট আগে পানি পান করুন।

স্যোশাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

এই ধরনের আরো সংবাদ

করোনা ভাইরাস থেকে সতর্ক থাকতে যা করনীয়ঃ

  • সবসময় হাত পরিষ্কার রাখুন। সাবান দিয়ে অন্তত পক্ষে ২০ সেকেন্ড যাবত হাত ধুতে হবে।
  • সাবান না থাকলে হেক্সিসল ব্যবহার করুন। হেক্সিসল না থাকলে হ্যান্ড সেনিটাইজার ব্যবহার করুন।
  • আক্রান্ত ব্যক্তি থেকে দূরে থাকুন, যতটুকু সম্ভব ভীড় এড়িয়ে চলুন।
  • বাজারে কিছু স্পর্শ করা থেকে বিরত থাকুন, করলে হাত সাবান দিয়ে ধুয়ে নিন।
  • টাকা গোনা ও লেনদেনের পর হাত সাবান দিয়ে ভালো করে ধুয়ে ফেলুন।
  • ওভার ব্রিজ ও সিড়ির রেলিং ধরে ওঠা থেকে বিরত থাকুন।
  • পাবলিক প্লেসে দরজার হাতল, পানির কল স্পর্শ করতে টিস্যু ব্যবহার করুন।
  • হাত মেলানো, কোলাকুলি থেকে বিরত থাকুন।
  • নাক, মুখ ও চোখ চুলকানো থেকে বিরত থাকুন।
  • হাঁচি কাশির সময় কনুই ব্যবহার করুন।
  • আপনি যদি করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত না হয়ে থাকেন তবে মাস্ক ব্যবহার আবশ্যক নয় তবে আক্রান্ত হলে সংক্রমণ না ছড়াতে নিজে মাস্ক ব্যবহার করুন।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে আতঙ্কিত না হয়ে সতর্ক থাকুন। Stay Home, Stay Safe.

ইমেইল: news@akhone.com
কারিগরি সহযোগিতায়: নি-টেক
11223