বৃহস্পতিবার, ০৬ অগাস্ট ২০২০, ০৬:৪৬ অপরাহ্ন

এবার নগরীর ১৯ টি ওয়ার্ডকে রেড জোন হিসেবে চিহ্নিত করলেন সিভিল সার্জন

এখনই ডট কম ডেস্ক:
  • প্রকাশের সময়: বৃহস্পতিবার, ১৮ জুন, ২০২০
  • ১৩ বার দেখা হয়েছে

করোনাভাইরাসের সংক্রমণের হার বিবেচনায় সিলেটের বিভিন্ন এলাকাকে রোড জোন হিসেবে চিহ্নিত করা ও লকডাউন নিয়ে সমন্বয়হীনতা ও বিভ্রান্তির মধ্যে এবার সিলেটের ১৯টি ওয়ার্ডকে রেডজোন হিসেবে চিহ্নিত করেছে সিভিল সার্জন কার্যালয়।

এছাড়া সিলেটের বেশকয়েকটি উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নকে রেডজোন হিসেবে চিহ্নিত করা হয়।

সিলেট নগরীর ওয়ার্ড ও উপজেলার ইউনিয়নগুলোকে রেড, ইয়োলো ও গ্রিণজোনে ভাগ করে বৃহস্পতিবার সিলেটের জেলা প্রশাসককে কাছে একটি চিঠি প্রেরণ করেছেন সিলেটের সিভিল সার্জন ডা. প্রেমানন্দ মন্ডল। চিঠিতে জোন ভাগ করা এলাকায় স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণের অনুরোধ জানানো হয়।

সিভিল সার্জন কার্যালয় থেকে জেলা প্রশাসকের কাছে পাঠানো চিঠিতে দেখা যায়, নগরীর ২৭টি ওয়ার্ডের মধ্যে ১৯টি ওয়ার্ডকে রেড জােন, ২টি ওয়ার্ডকে ইয়োলো জোন ও  ৬ টি ওয়ার্ডকে গ্রিণ জোন হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে।

এ তালিকা অনুযায়ী, সিলেট সিটি করপোরেশনের ১ থেকে ৯, ১২ থেকে ১৪, ১৬ থেকে ১৭, ১৯ থেকে ২২ ও ২৭ নং ওয়ার্ডকে রেডজোন হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে।

এছাড়া ১০ ও ১৮ নং ওয়ার্ড ইয়োলো জোন এবং ১১, ১৫, ২৩, ২৪, ২৫ ও ২৬ নং ওয়ার্ড গ্রীণ জোন হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে।

এছাড়া সিলেটের সব উপজেলার সকল ইউনিয়নকেও এভাবে তিনটি জোনো ভাগ করে জেলা প্রশাসকের কাছে পাঠিয়েছেন সিভিল সার্জন। তবে উপজেলাগুলোর জোনিংয়ের পূর্ণাঙ্গ তালিকা এখন পর্যন্ত পাওয়া যায়নি।

এনআগে গত ১৪ জুন নগরীর ১৯ টি ওয়ার্ডকে রেড জোন হিসেবে চিহ্নিত করে এসব এলাকা লকডাউন করার একটি প্রস্তাবনা সিলেট সিটি করপোরেশন থেকে সিলেটের সিভিল সার্জন কার্যালয়ে প্রেরণ করা হয়।

এ ব্যাপারে সিলেটের সিভিল সার্জন ডা. প্রেমানন্দ মন্ডল সিলেটটুডে টোয়েন্টিফোরকে বলেন, আমরা নগরী ও উপজেলাগুলোর সকল এলাকা তিনটি জোনে ভাগ করে একটি তালিকা জেলা প্রশাসকের কাছে পাঠিয়েছি। এখন পরবর্তী ব্যবস্থা জেলা প্রশাসক গ্রহণ করবেন।

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা মতে রেডজোন চিহ্নিত এলাকায় লকডাউন ঘোষণা করার কথা। তবে এ ব্যাপারে জেলা প্রশাসকই সিদ্ধান্ত নেবেন।

এ ব্যাপারে সিলেটের জেলা প্রশাসক ও করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে মাল্টি সেক্টরিয়াল কমিটির সভাপতি এম. কাজী এমদাদুল ইসলামের সাথে মোবাইল ফোনে যোগােযাগের চেষ্টা করা হলে তাকে পাওয়া যায়নি।

স্যোশাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

এই ধরনের আরো সংবাদ

করোনা ভাইরাস থেকে সতর্ক থাকতে যা করনীয়ঃ

  • সবসময় হাত পরিষ্কার রাখুন। সাবান দিয়ে অন্তত পক্ষে ২০ সেকেন্ড যাবত হাত ধুতে হবে।
  • সাবান না থাকলে হেক্সিসল ব্যবহার করুন। হেক্সিসল না থাকলে হ্যান্ড সেনিটাইজার ব্যবহার করুন।
  • আক্রান্ত ব্যক্তি থেকে দূরে থাকুন, যতটুকু সম্ভব ভীড় এড়িয়ে চলুন।
  • বাজারে কিছু স্পর্শ করা থেকে বিরত থাকুন, করলে হাত সাবান দিয়ে ধুয়ে নিন।
  • টাকা গোনা ও লেনদেনের পর হাত সাবান দিয়ে ভালো করে ধুয়ে ফেলুন।
  • ওভার ব্রিজ ও সিড়ির রেলিং ধরে ওঠা থেকে বিরত থাকুন।
  • পাবলিক প্লেসে দরজার হাতল, পানির কল স্পর্শ করতে টিস্যু ব্যবহার করুন।
  • হাত মেলানো, কোলাকুলি থেকে বিরত থাকুন।
  • নাক, মুখ ও চোখ চুলকানো থেকে বিরত থাকুন।
  • হাঁচি কাশির সময় কনুই ব্যবহার করুন।
  • আপনি যদি করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত না হয়ে থাকেন তবে মাস্ক ব্যবহার আবশ্যক নয় তবে আক্রান্ত হলে সংক্রমণ না ছড়াতে নিজে মাস্ক ব্যবহার করুন।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে আতঙ্কিত না হয়ে সতর্ক থাকুন। Stay Home, Stay Safe.

ইমেইল: news@akhone.com
কারিগরি সহযোগিতায়: নি-টেক
11223